What is Bitcoin? How to Make Money With Cryptocurrency

Bitcoin

আসসালামু আলাইকুম,কেমন আছেন সবাই। অনলাইনে টাকা আয়ের সাথে সাথে কিছু ক্রিপটোকারেন্সির সাথে পরিচিত হওয়া বিশেষ প্রয়োজন। কয়েনবেসে আছে অসংখ্য ক্রিপটোকারেন্সি যা সব সময় রেট আপ ও ডাউন হয়ে থাকে।

সেই কারেন্সির মধ্যে বিটকয়েন হলো ব্যাপক জনপ্রিয় একটি ক্রিপটোকারেন্সি। যা বর্তমান সময়ে ৫৫,০০০$ ডলারে পৌছে গেছে। মার্কিন জনগন এর দাম প্রায় ৮০,০০০$ ডলারে রেট বাজেট করেছে বলে জানিয়েছে এক যোগাযোগের মাধ্যম। যা পূর্ববর্তী রেট ছিলো মাত্র ৫০০০$ ডলারে।
বিটকয়েন এর দাম বাড়ায় আরো কিছু কারেন্সির দাম বেড়েছে। লাইট কয়েন ও ইথারিম সহ আরো বেশ কিছু কারেন্সি।

শতো কোটিপতি মার্কিন উদ্যোক্তা মাস্ক এর আগেও টুইটারে মন্তব্য করে বাজারে নানা ধরনের প্রভাব ফেলেছিলেন এই বিটকয়েনের। হিসাবে তার টুইটার অনুসারীর সংখ্যাও কম নয় তুলনামুলক ভাবে অনেক বেশি। সবমিলিয়ে ৫ কোটি ৪০ লাখ অনুসারী রয়েছে মাস্কের। বাজারে বিটকয়েনের দাম বাড়ানোর প্রথম অবদান রেখেছেন মাস্ক।কয়েক দিন ধরে টানা দাম বাড়ার রেকর্ড গড়ার পর উল্টোপথে হাঁটছিল জনপ্রিয় ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েন। সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছিলই না। খুব বেশি লেনদেন হয় এই বিটকয়েন ২০১৯-২০২১ পর্যন্ত।

কয়েক সপ্তাহ ধরে দাম পড়তে শুরু করেছিল এ ক্রিপ্টোকারেন্সির। কিন্তু রক্ষাকর্তার বেশে হাজির হলেন ইলন মাস্ক। যার অবদান অন্যতম। জাদুর দুই সপ্তাহ পড়ে যাওয়া দাম ৩০ শতাংশ বেড়েছে বিটকয়েনের।

আবারও দামের রেকর্ড গড়েছে ক্রিপ্টোকারেন্সি বিটকয়েন। শুক্রবার এর দাম ওঠে কয়েনপ্রতি ৫৫ হাজার ডলার (প্রায় ৪৫ লাখ টাকা)। এরই মাধ্যমে এই ক্রিপ্টোকারেন্সি এক ট্রিলিয়ন ডলারের বাজার মূলধন অর্জন করেছে। চলতি মাসে এখন পর্যন্ত বিটকয়েনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৫৫ শতাংশ।

বিটকয়েন একধরনের ক্রিপ্টো-কারেন্সি বা ভার্চুয়াল মুদ্রা। ইন্টারনেটের মাধ্যমেই এই মুদ্রার লেনদেন হয়ে থাকে। যা এখন ব্যাপক হারে ডলাার ২০০৮ সালের শেষের দিকে জাপানের একজন নাগরিক সাতোশি নাকামোতো নামের কেউ বা একদল সফটওয়্যার বিজ্ঞানী এই ‘ক্রিপ্টোকারেন্সির’ উদ্ভাবন করেন। যদিও এই ব্যক্তির আসল নাম বা পরিচয় এখনো জানা যায়নি। নতুন এই ভার্চুয়াল মুদ্রাকে বলা হয় বিটকয়েন। ২০১৬ সালের দিকে এই মুদ্রার দাম ১১ হাজার ডলার ছাড়িয়ে যাওয়ার পর জনপ্রিয় হয়ে উঠতে শুরু করে।

বর্তমানে এ কারনেই বিটকয়েনের দাম বেড়েই চলছে। অনলাইন দুনিয়ায় বিটকয়েন একটি জনপ্রিয় কারেন্সি। যে সমস্ত সাইটে বিটকয়েন আয় করবেন ও পেমেন্ট নিবেন। আজকের আর্টিকেলে আপনাদের জন্য নতুন একটি ইনকামের সাইট নিয়ে হাজির হয়েছি। আজকে যে সাইটটি নিয়ে আপনাদের সাথে কথা বলবো সে সাইটে রয়েছে ইনকামের অনেক সিস্টেম। আমরা আজকের সাইটে অনেক সিস্টেম ব্যবহার করে বিটকয়েন ইনকাম করতে পারবো।

আপনারা তো জানেন বর্তমান সময়ে বিটকয়েন এর অনেক মূল্য বেড়ে গেছে। বর্তমান খবরে দিয়েছে এক বিটকয়েন সমান শাট হাজার ডলারে পৌছতে পারে। তাই আমরা আজকে একটা বিটকয়েন আয়ের সাইট পেয়েছি যেখান থেকে আমরা প্রতিদিন অল্প কাজে বেশি ইনকাম করতে পারি। এবার আপনাদেরকে বলে দিবো কিভাবে আপনি এই সাইটে কাজ করবেন ও পেমেন্ট নিবেন। প্রথমেই আপনাকে এই সাইটে একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। এই সাইটে একাউন্ট করার জন্য একটি লিংক ব্যবহার করতে হবে।

এবার প্রশ্ন করতে পারেন লিংকটি কোথায় পাব?

যদি আপনি কাজ করতে চান তাহলে এই পোস্টে কমেন্ট করেন আমরা আপনাকে লিংক দিব। সেই লিংক এ ক্লিক করে আপনাকে একটি একাউন্ট করতে হবে। এবার একাউন্ট করার নিয়ম: একাউন্ট করার জন্য সাইটে প্রবেশ করার পর নিচে একটি সবুজ (Sign up) লেখা দেখতে পারবেন। তারপর একটা ফরম দিবে সেই ফরমটি আপনাকে পূরণ করতে হবে। এবার ফরম পূরনের নিয়ম form filap korun তার নিচে ছোট একটা ঘরের মত দেখতে পারবেন সেখানে ক্লিক করে টিক মার্ক করে দিন। i am not a robot এ ক্লিক করে ক্যাপ্চা পূরণ করে ভেরিফাই করতে হবে। এবার আপনার ফরম এর কাজ শেষ।

একেবারে নিচে দেখবেন সাবমিট অপশন আছে সেখানে ক্লিক করে দিন। এবার আপনার অ্যাকাউন্ট হয়ে যাবে। তারপর আপনার জিমেইলে একটি ম্যাসেজ যাবে সেই মেইলে ভেরিফাই বা একটিব করার কথা বলবে। সেই লিংকে ক্লিক করে আপনার একাউন্টটি একটিভ করুন। তারপর লগ ইন করুন।

এবার আপনার প্রশ্ন থাকতে পারে যে, কিভাবে ইনকাম করবো?

একাউন্ট করা শেষ, এবার লগ ইন করলাম তারপর ইনকাম। বিটকয়েন আয় করার জন্য উপরে সাইটে থ্রি ডট আইকন আছে সেখানে ক্লিক করুন। সেখানে ক্লিক করার পর অনেক পেজ আপনার সামনে চলে আসবে। সেই পেজ সমুজ আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম এই সব ফিচার গুলো দেখতে পারবেন। এই সব অপশন গুলোর কাজ ভিন্ন ভিন্ন। তাই এক এক করে আপনাদের সামনে উপস্হাপন করার চেষ্টা করবো।এই অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি একটি ভিন্ন ধরনের পেজ দেখতে পারবেন। এবার দেখাবো কোন ধরনের পেজ দেখতে পারবেন। এখানে গেম এর কথা বলা হয়েছে। কারণ এখানে আমরা রোল করে ইনকাম করতে পারবো।

করার জন্য নিচে রোল অপশন পাবেন সেখানে ক্লিক করে গেম খেলতে পারবেন। প্রতিবার রোল করার জন্য আপনাকে রোবট অপশনে ক্লিক করে রোবট ভেরিফাই করতে হবে। তারপর নিচে রোল এ ক্লিক করলেই আপনার একটা কোড আসলে আপনি কিছু পরিমাণ বিটকয়েন ইনকাম হয়ে যাবে। এবার আপনাদেরকে দেখাবো কোন কোন কোডে কত বিটকয়েন বা সাতোসি জিততে পারেন।প্রথমই থাকবে লাকি নাম্বার তার সাইটে থাকবে ভেলু ইন বিটিসি।

সাইটে দেখানো পয়েন্ট সমুহ রোল করার পর নিচের ঘরে যে পয়েন্ট আসবে তার সাইটের সাতোসি সমুহ আপনার একাউন্টে জমা হবে।

এবার প্রশ্ন করতে পারেন এখানে কি সারাক্ষণ কাজ করতে পারবো?

আসলে প্রতিটা বিষয়ের একটি লিমিট রয়েছে। সেই সমস্ত লিমিট মেনেই আমাদের কাজ করতে হয়। এই সাইটেও ঠিক তেমন একটি নিয়ম দেয়া আছে। নিয়মটা হলো প্রতি ত্রিশ মিনিট পর পর ক্লেইম করে আপনি সাতোসি জিততে পারবেন। আপনি চাইলে বার বার রোল করতে পারবেন না। ত্রিশ মিনিট সময় কাউনডাউন হওয়ার পর আপনি পরবর্তি রোল করতে পারবেন।

এবার প্রশ্ন করতে পারেন রোল করলাম কিন্তু আমরা ব্যালেন্স দেখবো কিভাবে?

আপনার ইনকাম করা ব্যালান্স দেখার জন্য উপরে থ্রি ডট আইকনে ক্লিক করে একেবারে নিচে দেখুন আপনার অর্জিত সাতোসি রয়েছে। পর পর রোল করে এখানে আসলে আপনার সাতোসি বা বিটকয়েন গুলো দেখতে পারবেন। রেফার যত আয় তত। বর্তমান সময়ে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর চেয়ে বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস এ ব্যাবসা নেই।

আরো বেশি ইনকাম করতে চাইলে আপনি রেফার করতে পারেন। এখানে ব্যাপক পরিমাণ ইনকাম রয়েছে। প্রতিটা রেফারেলে আপনি পাবেন ৫০% বোনাস। অর্থাৎ আপনার রেফারেলে জয়েন করে সে যত ইনকাম করবে তার ৫০% আপনি পাবেন। তাই যত পারেন আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে ইনকাম করুন বেশি বেশি।

আমাদের দেশে বেকারত্ব দুর করতে হলে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে এফিলিয়েট করতে হবে। তাহলে আমাদের দেশ প্রযুক্তিগত ভাবে উন্নত হবে এবং আমরা অনলাইনে কাজ করে মোটা অংকের ইনকাম করতে পারবো। তাই আজকের এই সাইটে রেফার করে আমাদের বিছুটি হলেও ইনকাম করতে হবে।কারন এখানে ইন্সট্যান্ট পেমেন্ট করে।
এখানে আরো একটি অপশন আছে ডিপোজিট করার আমরা আপনাকে ডিপোজিট করার কথা বলবো না কারণ ডিপোজিট ছাড়াই ভাল পরিমান ইনকামের সুযোগ রয়েছে।

কনটেস্টে ১০ জন যারা আছে তাদের সর্বনিম্ন ইনকাম ৫০ ডলার। বিষয়টা কিন্তু ছোট করে দেখবেন না। কারন শুধু মাত্র রেফার করেই ৫০ ডলার আরো নিজের কাজের ফল তো আছেই। তাই আমি বলবো কেউ এই সাইটে কাজ করা বাদ দিবেন না। কারন আপনার একটা রোলের বিনিময়ে পেয়ে যেতে পারেন ৩০০ ডলার। অনেকেই এই সাইটে কাজ করে একটি রোলের বিনিময়ে ৩০০ ডলার পর্যন্ত পেয়েছে এবং পেমেন্ট নিয়েছে। তাই কোন ভাবেই একটা রোলও বাদ দিবেন না প্রতি ৩০ মিনিট পর পর রোল করুন।আরো ইনকামের সিস্টেম রয়েছে তারমধ্যে অন্যতম হলো, এখানে ক্লিক করে চারটা রোল আইকন পাবেন সেখানে ক্লিক করে চারটা রোল কমপ্লিট করে ইনকাম করতে পারবেন।
আরো রয়েছে, লটারী খেলে ইনকাম করার সুযক।যারা লটারিতে ভালো জিততে পারেন তারা লটারিতে অংশ নিতে পারেন।

এই পেজে আপনি অতিরিক্ত রেফার করে কনটেস্টে যুক্ত হতে পারবেন। আপনার রেফার সবার থেকে বেশি হলে আপনি অনেক বড় একটা এমাউন্ট পেয়ে যাবেন আপনার একাউন্টে। আমরা মোটামোটি একটা সাতোসি ইনকাম করলাম। এবার আপনারা কিভাবে পেমেন্ট নিবেন সে বিষয়টা নিয়ে আপনাদের সাথে কথা বলবো।

আপনি কয়েনবেসে এর মাধ্যমে বিটকয়েন এ পেমেন্ট নিতে পারবেন। আপনাকে কয়েনবেসে থেকে বিটকয়েন ওয়ালেট এডরেসটি কপি করে এনে সাইটে প্রবেশ করে উপরে কোনায় থ্রিডট আইকনে ক্লিক করে নিচে দেখবেন more অপশন আছে সেখানে ক্লিক করুন। তারপর দেখতে পারবেন withdraw অপশন আছে সেখানে ক্লিক করুন।

এখানে মাত্র ০.০০০২ বিটিসি হলেই পেমেন্ট নিতে পারবেন। উইথড্রোতে ক্লিক করলে আপনার কাছে এড্রেস চাইবে তারপর কপি করা এড্রেসটি পেস্ট করে দিন। তার নিছে আপনার অর্জিত সাতোসি গুলো দিন তারপর রিকুয়েস্ট বাটনে ক্লিক করুন। এই সাইটে মজার বিষয় হলো উইথড্রো দেয়ার সাথে সাথে পেমেন্ট করে দেয়। এক মিনিট সময়ও নেয় না।
তবে আপনার একাউন্ট এ ০.০০০২ সাতোসি না হলে পেমেন্ট নেয়ার অপশন দেখায় না। আপনার একাউন্ট এ পর্যাপ্ত ব্যালেন্স হলেই উইথড্রো বাটন আনলক হয়ে যাবে। এভাবেই মুলত এই সাইট থেকে ইনকাম করা যায় এবং পেমেন্ট নেয়া যায়।

Bitcoin কি? কিভাবে Bitcoin ইনকাম করবো এবং সাইট সমূহ বিস্তারিত

বিটকয়েন হলো ইন্টারনেট ভিত্তিক অনলাইন অ্যাকাউন্ট। যার সাথে যুক্ত রয়েছে অনেক ক্রিপটোকারেন্সি। আপনি খুব সহজেই কয়েনবেসে ব্যবহার করে বিটকয়েন বাই সেল করতে পারেন।

সর্ব প্রথমেই জানা যাক বিটকয়েনের আবিষ্কার সম্পর্কে বিটকয়েনকে আবিষ্কার করেন সাতোশি নামক এক বৃটিশ লোক। তিনি সর্ব প্রথম এই ক্রিপটোকারেন্সি তৈরি করেছেন বলেই বিটকয়েন এর কয়েন সমূহকে সাতোশি নাম করণ করা হয়। এই কারেন্সি অনলাইনে ব্যাপক লেনদেন হয়। তাছাড়া এই কারেন্সি ব্যবহার অনেক সহজ ও ব্যবহারে বা ট্রান্সফারে চার্জ কম।সুবিধামত যখন ইচ্ছা ব্যবহার করা যায়। বিটকয়েন বাই সেল করতে সময়ও কম লাগে ফলে ব্যবহার বেশি। যে কোন মার্কেটপ্লেস এ ডিপোজিট করা যায় খুব সহজেই। আরো বড় ধরনের সুবিধা হলো বিটকয়েন এ অ্যাকাউন্ট খোলা একেবারে সহজ।

কোন টাকা বা ভেরিফাই ঝামেলা নেই। অন্যান্য সাইটে অ্যাকাউন্ট খুলতে গেলে ভেরিফাই ঝামেলা রয়েছে। এদিক থেকেও বিটকয়েন এগিয়ে। আপনি বিভিন্ন সাইটে ডলার ইনকাম করলেন সেই ডলার একচেন্জ করে বিটকয়েন এ নিতে পারবেন।

বিটকয়েন হচ্ছে একধরনের ক্রিপ্টোকারেন্সি যা লাখ লাখ মানুষ ব্যবহার করে। আজকাল ইন্টারনেট দুনিয়ায় অনলাইন মার্কেটপ্লেস এ যারা কাজ করে তাদের বিটকয়েন এ একটি হলেও অ্যাকাউন্ট রয়েছে।

আপনি এবার প্রশ্ন করতে পারেন বিটকয়েন ছাড়া কি অনলাইনে কাজ করা যায় না?

হ্যা,অনলাইনে বিটকয়েন ছাড়া কাজ করতে পারবেন খুব অল্প কিছু সাইটে। আপনি যদি অনলাইনে আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই বিটকয়েন এ অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। বিটকয়েন ইনকাম করার জন্য বেশ কিছু জনপ্রিয় সাইট রয়েছে। যে গুলো থেকে আমরা বিটকয়েন আয় করতে পারি। বর্তমানে যে কোন সাইট থেকে বিটকয়েন এ পেমেন্ট নেয়া যায়। আমরা সচারাচর অনলাইনে বিভিন্ন সাইটে কাজ করে থাকি। সেই সাইটে আমরা যে সব ডলার আয় করি সেই ডলার গুলো বিটকয়েন এ আনতে আমাদের ওয়ালেট অ্যাডরেসটি কপি করে তাদের সাইটে পেস্ট করে উইথড্রো দিলে আমাদের অর্জিত ডলার বা টাকা আমাদের বিটকয়েন এ দিয়ে দিবে। এভাবেই আমরা বিটকয়েন এ ডলার বা সাতোসি কয়েন জমা করি।

এবার জানবো কোন কোন সাইটে আমরা বিটকয়েন ইনকাম করবো ও কিভাবে?

কয়েকদিন আগে এই সাইটে একটা আর্টিকেলে বিটকয়েন ইনকাম করা যায় এমন একটি পোস্ট আমাদের এই সাইটে রয়েছে আপনি চাইলে সেই আর্টিকেল পড়ে ইনকাম করতে পারেন।

এবার আপনাদের সাথে ব্যাতিক্রম এক সাইট শেয়ার করবো যেখান থেকে আপনি ফ্রিতে বিটকয়েন ইনকাম করতে পারেন। সেই ইনকাম যদি ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে করা যায় তাহলে কেমন হয়। এমন শত শত সাইট আছে।

Leave a Comment