জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের কৌশলগত স্লোগান

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ

বর্তমানে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের শ্লোগান রয়েছে। ছেলে হোক মেয়ে হোক দুটি সন্তানই যথেষ্ট। পূর্বে ভুল একটি স্লোগান ছিল সেটি হচ্ছে দুটি সন্তানের বেশি নয় একটি হলে ভালো হয়।

আজকের আর্টিকেলে আপনাদের সাথে আলোচনা করব বর্তমানে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের স্লোগান সরকার কিভাবে নিয়ন্তন করেছেন।

১৯৫৩ সালে কিছু সমাজ সচেতন প্রগতিশীল ও মানব প্রচেষ্টায় বর্তমান বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রম শুরু হয়। ধীরে ধীরে প্রতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করে। ২ মার্চ ১৯৫৩ বেসরকারি উদ্যোগে গঠিত হয়। বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা সমিতি গঠন হয়। পরিবার পরিকল্পনা সমিতি বড় বড় শহরগুলোতে ক্লিনিক স্থাপনের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু করে। ১৯৬৫ সালে সরকারি পর্যায়ে পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। কেন্দ্রীয় পর্যায়ে পরিবার পরিকল্পনা কাউন্সিল গঠন করা হয়।

১৯৭৩ সালে বাংলাদেশে প্রথম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ ও খাদ্য উৎপাদনের গুরুত্ব আরোপ করা হয়। ঠিক তখনই যাত্রা শুরু হয় বহুমুখী ও দেশব্যাপী জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের। পরিবার ও পরিকল্পনা কার্যক্রম এভাবেই শুরু করা হয়। ১৯৭৬ সালের জুনে জাতীয় জনসংখ্যা কাউন্সিলের সভায় জনসংখ্যাকে দেশের এক নম্বর সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আশির দশকে ছেলে হোক মেয়ে হোক দুটি সন্তানই যথেষ্ট স্লোগান প্রবর্তন করা হয়।

২০০৪ সালে নতুন করে দুটি সন্তানের বেশি নয় একটি হলে ভালো হয় স্লোগান ব্যবহার করা হয়। ১ জুলাই ২০১৮ জাতীয় জনসংখ্যা পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের স্লোগান দুটি সন্তানের বেশি নয় একটি হলে ভালো হয়। এর পরিবর্তে পূর্বের শ্লোগান ছেলে হোক মেয়ে হোক দুটি সন্তানই যথেষ্ট ব্যবহারে প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়। এরপর ১৪ অক্টোবর ২০১৮ ছেলে হোক মেয়ে হোক দুটি সন্তানই যথেষ্ট ব্যবহারে পরিচয় পত্র জারি করে সরকার।

Leave a Comment